ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | ঋণ পরিশোধেই শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তি?

ঋণ পরিশোধেই শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তি?

স্টাফ রিপোর্টার, ২৫ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির মাধ্যমে অর্থ তুলে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান অনৈতিকভাবে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। এসব কোম্পানি নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতেই এ রাস্তা বেছে নিচ্ছে। আর এর দায় সাধারণ বিনিয়োগকারীর ওপর পড়ছে বলে অভিযোগ বিনিয়োগকারীদের।

প্রশ্ন ওঠেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে এক খাতে ব্যয় করা হবে বলে তালিকাভুক্তির অনুমোদন নিয়ে অন্য খাতে ব্যয় করছে কোম্পানিগুলো। এছাড়া উত্তোলিত অর্থের অধিকাংশ ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করছে তারা।

এভাবে কোম্পানিগুলোর ঋণ পরিশোধের বিষয়টি কতটা যুক্তিযুক্ত তা বিশদভাবে খতিয়ে দেখা উচিত বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। একই সঙ্গে কোম্পানিগুলোর উত্তোলিত অর্থ সঠিকভাবে ব্যবহার হচ্ছে কিনা তা মনিটরিং করার কথা বলেন  তারা।

সংশ্লিষ্টদের মতে, শেয়ারবাজার থেকে টাকা তুলে অধিকাংশ কোম্পানি ব্যাংক লোন পরিশোধের প্রবণতা বাড়ছে। ব্যবসায়িক মন্দা, পরিচালন ব্যয় বৃদ্ধি, বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকটের কারণে ব্যবসা সম্প্রসারণ করতে না পারায় কোম্পানিগুলোর আয়ে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। আর কোম্পানিগুলোর  ব্যাংক ঋণের কারণে আয়ের একটি বড় অংশই চলে যাচ্ছে ঋণসহ সুদ পরিশোধে। তাই ঋণের সুদ থেকে মুক্তি পেতে কোম্পানিগুলো শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহে মরিয়া হয়ে ওঠে।

জানা গেছে, ২০১২ সালে পুঁজিবাজারে মোট ১০টি কোম্পানি তালিকাভুক্ত হয়। এর মধ্যে ৫ কোম্পানিই শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করেছে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করেছে। কোম্পানিগুলো হলো- জিপিএইচ ইস্পাত, জিবিবি পাওয়ার, পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, আমরা টেকনলজিস, বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল এবং ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্ট। আর চলতি বছরে ৯ কোম্পানিকে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির অনুমোদন দেয়া হয়। এর মধ্যে ফ্যামিলিটেক্স, আর্গন ডেনিমস লিমিটেড এবং গোল্ডেন হার্ভেস্ট অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলন করে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করবে।

সূত্রে জানা গেছে, আইপিওতে অনুমোদন পাওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড ২০ টাকা প্রিমিয়ামে শেয়ারবাজার থেকে ৬০ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে ৫৮ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যাংক ঋণ পরিশোধে ব্যয় করবে কোম্পানিটি। অর্থাৎ ৯৮ শতাংশ অর্থই ব্যয় করা হবে ব্যাংক ঋণ পরিশোধে। আর বাকি অর্থ আইপিও প্রক্রিয়া সম্প্রসারণে ব্যয় করেছে কোম্পানিটি।

জিবিবি পাওয়ার লিমিটেড ৩০ টাকা প্রিমিয়ামে শেয়ারবাজার থেকে ৮২ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে ৭৭ কোটি টাকাই সংগ্রহ করেছে ব্যাংক ঋণ পরিশোধে।  অর্থাৎ শেয়ারবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থের প্রায় ৯৪ শতাংশ অর্থই ব্যয় করা হয়েছে ব্যাংক ঋণ পরিশোধে। মাত্র ১ কোটি ১৪ লাখ টাকা শুধু নতুন বিনিয়োগে ব্যবহার করবে কোম্পানিটি।

পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি প্রিমিয়াম ছাড়াই ১২ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে ১১ কোটি ২৭ লাখ টাকাই ব্যয় করবে ব্যাংকঋণ পরিশোধে। এ কোম্পানিও সংগৃহীত অর্থের প্রায় ৯৪ শতাংশই ব্যয় করেছে ব্যাংকঋণ পরিশোধে।

আমরা টেকনোলজিস ১৪ টাকা প্রিমিয়ামে বাজারে শেয়ার ছেড়ে ৫১ কোটি ৭৭ লাখ টাকা সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে ৩৫ কোটি ৮৫ লাখ টাকাই ব্যাংক ঋণ পরিশোধে ব্যয় করবে কোম্পানিটি। শতকরা হিসাবে এর পরিমাণ হচ্ছে ৬৯ দশমিক ২৫ ভাগ। আর ১২ কোটি ৮৭ লাখ টাকা বিনিয়োগ করবে। বিনিয়োগের হার প্রায় ২৯ শতাংশ।

বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি ২৫ টাকা প্রিমিয়ামে ১০৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা শেয়ারবাজার থেকে উত্তোলন করেছে। এর মধ্যে ৭৮ কোটি ৩৪ লাখ টাকাই ব্যাংকের ঋণ পরিশোধে ব্যয় হবে। যা আইপিওর মাধ্যমে উত্তোলিত অর্থের ৭২ শতাংশেরও বেশি। কোম্পানিটি ২৪ কোটি ৪৬ লাখ টাকা নতুন বিনিয়োগে ব্যবহার করবে। বাকি ৫ কোটি ৭০ লাখ টাকা আইপিও প্রক্রিয়া সম্প্রসারণে ব্যয় হবে।

এছাড়া ইউনিক হোটেল শেয়ারবাজার থেকে ৬৫ টাকা প্রিমিয়ামে ৫৫৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে ৫৬ কোটি ৩১ লাখ টাকা ব্যাংক ঋণ পরিশোধে ব্যয় করবে কোম্পানিটি।

এদিকে ব্যাংক ঋণের দায় থেকে মুক্তি পেতে আরও ৪টি কোম্পানি শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহে বিএসইসিতে আবেদন জমা দিয়েছে। কোম্পানিগুলো হলো- নাভানা রিয়েল এস্টেট, এনার্জি প্রিমা, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড এবং অটোবি।

সূত্রে জানা যায়, নাভানা রিয়েল এস্টেট কয়েকটি ব্যাংক থেকে অধিক সুদে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী ঋণ নিয়েছে। কোম্পানিটি বাজার থেকে ৩৬০ কোটি টাকা সংগ্রহ করার প্রস্তাব দিয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটির প্রতি বছর ৪৫ কোটি টাকা ব্যাংকের ঋণসুদ দিতে হচ্ছে। ৩৬০ কোটি টাকা থেকে কোম্পানিটি ২২০ কোটি টাকার ঋণ শোধ করবে।

অপর কোম্পানি এনার্জি প্রিমার ব্যাংক ঋণ রয়েছে ২৮০ কোটি টাকা। কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে টাকা তুলে ১৭৫ কোটি টাকার ঋণ শোধ করবে।

একইভাবে ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড বাজার থেকে সংগৃহিত অর্থ থেকে ২৬৫ কোটি টাকার ঋণ শোধ করবে।

অপরদিকে অন্য কোম্পানি অটবির মোট ১৬টি ব্যাংকে ৫৩৩ কোটি টাকা ঋণ রয়েছে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠাটি বিদ্যুৎ উপাদন খাতে বিনিয়োগ করে বড় ধরনের সংকটে পড়েছে। ব্যংক থেকে ঋণ নিয়ে দেরিতে উৎপাদনে এসে বাড়তি সুদ দিতে হচ্ছে ৫০ কোটি টাকা।

এদিকে অ্যাপালো ইস্পাত পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির অনুমোদন পেলেও অর্থমন্ত্রীর নির্দেশে আপাতত এর কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে। তবে গত ৭ মার্চ অর্থমন্ত্রী কোম্পানিটিকে আবারও অনুমোদনের নির্দেশ দিয়ে বিএসইসিকে চিঠি দিয়েছেন বলে জানা গেছে। অ্যাপোলো ইস্পাতের ব্যাংক ঋণ রয়েছে ২৮০ কোটি টাকা। এ প্রতিষ্ঠানটি কারখানা সম্প্রারণ ও ঋণ শোধ করার জন্য বাজার
থেকে টাকা তুলবে।

এ বিষয়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রেসিডেন্ট মো. রকিবুর রহমান বলেন, ‘পুঁজিবাজার থেকে টাকা তুলে ব্যক্তিগত ঋণ ঢালাওভাবে যেন পরিশোধ না করতে পারে সে বিষয়ে আমরা একাধিকবার বিএসইসিকে জানিয়েছি। সার্বিক দিক বিবেচনা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে বিএসইসি।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাবেক প্রেসিডেন্ট ফখর উদ্দিন আলী আহমেদ বলেন, শেয়ার ছেড়ে কোম্পানিগুলো ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করলে তাতে কোম্পানির আয় বাড়বে এবং শেয়ারহোল্ডাররা লাভবান হবেন। কিন্তু  ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে কোম্পানি তা অপব্যবহার করে কিংবা পরিচালকরা নিজেদের পকেট ভারি করেন, তাহলে বিনিয়োগকারীরা লাভবান হবেন না। যেসব কোম্পানি শেয়ারবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করে ব্যাংক ঋণ শোধ করছে কতখানি যুক্তিযুক্ত এবং তা সঠিকভাবে ব্যবহার হচ্ছে কিনা তা বিশদভাবে খতিয়ে দেখা উচিত।

এদিকে পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ ও অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আবু আহমেদ বলেন, শেয়ারবাজার থেকে টাকা তুলে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করতে পারে তাতে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু টাকা উত্তোলন করে আদৌ কোম্পানি তা পরিশোধ করছে কিনা তা দেখার কেউ নেই। কোম্পানিগুলো বিএমআরই, ব্যবসায় সম্প্রসারণ, ব্যাংকঋণ পরিশোধে বাজার থেকে অর্থ তুললেও সে অর্থ সঠিকভাবে ব্যবহত হচ্ছে কিনা সে ব্যাপারে বিএসইসির আরো নজরদারি বাড়ানো উচিত।

x

Check Also

‘গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন’ নির্বাচনে মুজাক্কির – সেলিম প্যানেল বিজয়ী

জিয়াউল হক জুমন, স্পেন প্রতিনিধিঃ সিলেট বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত গ্রেটার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার ...