Home | টিপস | ঈদের দিন ও আমাদের করণীয়

ঈদের দিন ও আমাদের করণীয়

বিডিটুডে ডেস্ক : ঈদুল ফিতর মুসলমানদের এক গুরুত্বপূর্ণ ও অনাবিল আনন্দের উৎসব। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর ঈদুল ফিতরের শুভ আগমন। রোজার মাধ্যমে যে সাম্য ও ভ্রাতৃত্বের শিক্ষা লাভ হয় তারই পূর্ণতা সাধনে যেন আমাদের এনে দেয় বৈপ্লাবিক পরিবর্তন। এ ঈদ মূলত আমাদের মাঝে বিশ্ব ভ্রাতৃত্বের কল্যাণ বার্তা নিয়ে আসে। শান্তির অনুপম বার্তাবাহী ঈদুল ফিতর মুসলমানদের মাঝে অসীম প্রেরণার জন্ম দেয়। এ দিন প্রতিটি মুসলিম সত্তা নব উৎসাহ-উদ্দীপনায় জেগে উঠে।

রাসুল (সা.) নিজে ঈদ পালন করেছেন এবং সাহাবিদের ঈদ উদযাপন করার জন্য তাগিদ দিয়েছেন। মদিনায় যাওয়ার পর রাসুল (সা.) দেখলেন লোকজন দুটি দিনকে উদযাপন করে খেলাধুলা করেছেন। তাদের এ খেলাধুলা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলে আমরা জাহেলি যুগ থেকে এ দুই দিন খেলাধুলা করতাম। তখন রাসুল (সা.) বলেন, আল্লাহতায়ালা এ দুই দিনের পরিবর্তে তোমাদের এর চেয়ে শ্রেষ্ঠ দুটি দিন দিয়েছেন। তা হলো ঈদুল আজহা ও ঈদুল ফিতর। (আবু দাউদ : ১১৩৪)।

ঈদের দিন যে কাজ করা উত্তম : ১. পাক পবিত্র থাকার জন্য গোসল অপরিহার্য। এজন্য ঈদের দিন গোসল করে ঈদগায়ে যাওয়া উত্তম। রাসুল (সা.) তিনি ঈদের দিন গোসল করতেন। হজরত ইবনে ওমর (রা.) হতে বর্ণিত যে, তিনি ঈদুল ফিতরের দিন ঈদগাহে যাওয়ার আগে গোসল করতেন। (সুনানে বায়হাকি : ৫৯২০)।

২. পোশাক সাজ-সজ্জা ও সৌন্দর্য চর্চার অন্যতম উপাদান। ঈদের দিন নতুন বা উত্তম পোশাক পরিধান করা প্রয়োজন। রাসুল (সা.) ঈদগায়ে যাওয়ার আগে সর্বোত্তম পোশাক পরিধান করতেন। ইবনুল কায়্যিম (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) দুই ঈদেই ঈদগায়ে যাওয়ার আগে সর্বোত্তম পোশাক পরিধান করতেন। (যাদুল নায়াদ )।

৩. ঈদুল ফিতরের দিনে ঈদের নামাজ আদায়ের আগে খাবার গ্রহণ করে ঈদগায়ে যাওয়া রাসুল (সা.) এর একটি সুন্নত। হজরত বুরাইয়া (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুল (সা.) ঈদুল ফিতরের দিন না খেয়ে বের হতেন না, আর ঈদুল আজহার দিনে ঈদের সালাতের আগে খেতেন না। (তিরমিজি-৫৪৫)।

৪. হেঁটে ঈদগায়ে যাওয়া রাসুল (সা.) এর সুন্নত। ওজররত ব্যক্তির জন্য প্রযোজ্য নহে। রাসুল (সা.) হেঁটে ঈদগাহে যেতেন। হজরত আলী (রা.) হতে বর্ণিত, ‘তিনি বলেন হেঁটে ঈদগায়ে যাওয়া সুন্নত’। (বুখারি : ৯৮৬)।

৫. ঈদের দিন সুবহে সাদিক হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সদকায়ে ফিতর ওয়াজিব হয়। সুতরাং কোনো ব্যক্তি যদি ঈদুল ফিতরের দিন সুবহে সাদিকের আগে ইন্তেকাল করে তার মদকায়ে ফিতর আদায় হবে না। আর যদি কোনো সন্তানাদি সে দিন সুবহে সাদিকের আগে জন্ম নেয়, তার পক্ষ থেকে ফিতরা আদায় করতে হবে। (তাহতাবি : ৩৯৫)।

৬. আবদুল্লাহ ইবনে উমার (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুল (সা.) ঈদুল ফিতরের দিন ঘর থেকে বের হয়ে ঈদগায়ে পৌঁছানো পর্যন্ত আল্লাহু আকবার আল্লাহু আকবার লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ আল্লাহু আকবার আল্লাহু আকবার ওয়া লিল্লাহিল হামদ তাকবির পাঠ করতেন। (মুসতাদরাক : ১১০৬)।

৭. আবদুল্লাহ বিন সায়েব (রা.) হতে বর্ণিত, আমি রাসুল (সা.) এর সঙ্গে ঈদ উদ্যাপন করলাম। যখন তিনি ঈদের নামাজ শেষ করলেন, তখন বললেন, যার ভালো লাগে সে যেন বসে আর যে চলে যেতে চায় সে যেতে পারে। (সুনানে আবু দাউদ : ১১৫৭)।

৮. ঈদের দিন আল্লাহতায়ালা একদল লোককে এভাবে মাফ করে দেয় যেমনি তাদের মা তাদেরকে নিষ্পাপ জন্ম দিয়েছিল। রাসুল (সা.) বলেন, তারা যেন এই দিনে মুসলিমদের জামাতে দোয়ায় অংশগ্রহণ করে। (লাতাইফুল মায়ারিফ)।

৯. নামাজ শেষে ধনী-গরিব ছোট-বড় নির্বিশেষে সবাই একে অপরের সঙ্গে বুকে বুক মিলিয়ে কোলাকুলি করেন মানবতাবধের টমেন দৃশ্য মুসলমানদের ছাড়া অন্য কোনো ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে দেখা যায় না। ঈদের নামাজের পর রাসুল (সা.) তার সাহাবিদের সঙ্গে মুসাফাহাহ ও মুআনাকাহ করতেন আবু হুরায়রা (রা.) হতে বর্ণিত, ‘হজরত হাসান (রা.) এক দিন হজরত রাসুল (সা.) এর কাছে আসলেন, তিনি তখন তাকে জরিয়ে ধরলেন এবং কোলাকুলি করলেন’। (শারহুস সুন্নাহ)।

১০. ইবনে হাজার (রাহ.) বলেন, সাহাবিরা ঈদর দিন ঈদের নামাজের পর বিভিন্ন রকমের ঈদের শুভেচ্ছা করতেন। ঈদ মোবারক ইনশাআল্লাহ, ঈদকুমসাইদ, এ ধরনের বাক্য বলে একে অপরের সঙ্গে ঈদের নামাজের পর শুভেচ্ছা ক্ষণিময় করতেন।

১১. ঈদের দিন আত্মীয় স্বজনদের বাসায় বেড়াতে যাওয়া একটি বিশেষ সুযোগ সৃষ্টি হয়। আত্মীয়দের সঙ্গে সর্বদা সম্পর্ক রাখতে হবে। রাসুল (সা.) বলেন, ‘যে আখিরাতে বিশ্বাস রাখে সে যেন আত্মীয়দের সঙ্গে সম্পর্ক রাখে’। (বুখারি : ৬১৩৮)।

১২. ঈদের দিনসহ সবসময় প্রতিবেশীদের খোঁজখবর রাখতে হবে। রাসুল (সা.) ঈদের দিন তার প্রতিবেশীদের খোজ খবর রাখতেন। (আল হাদিস)।

১৩. হজরত আয়েশা (রা.) বর্ণনা করেন, রাসুল (সা.) আমার গৃহে এসে দেখেন দুটি মেয়ে গান গাইছে বুয়াস যুদ্ধের বীরদের স্বরণে। তারা পেশাদার গায়িকা ছিল না। এমন সময় আবু বকর (রা.) ঘরে প্রবেশ করে মেয়ে দুটিকে ধমকাতে লাগলেন। রাসুল (সা.) বলেন, হে আবু বকর তাদের ধমক দিও না। মেয়ে দুটিকে গাইতে দাও। প্রত্যেক জাতির ঈদ রয়েছে। আর আজ আমাদের ঈদের দিন। (বুখারি : ৯৫২)।

 

 

[প্রিয় পাঠকপাঠিকা, আপনিও বিডিটুডে২৪.কম এর অংশ হয়ে উঠুন শেয়ার করুন নিজের অভিজ্ঞতা প্রকাশ করুন নিজের প্রতিভা আপনিও হতে পারেন লেখক অথবা মুক্ত সাংবাদিক সমকালীন ঘটনা, সমাজের নানান সমস্যা, জীবন যাপনে সঙ্গতিঅসঙ্গতি সহ লাইফস্টাইল বিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, খাবার, রূপচর্চা ঘরোয়া টিপস্ বিভিন্ন বিষয়ে বস্তনিষ্ঠ অপনার যৌক্তিক মতামত সর্বোচ্চ ১০০০ শব্দের মধ্যে গুছিয়ে লিখে আপনার নিজের ছবি এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ (যদি থাকে) মেইল করুন  bdtoday24@gmail.com ঠিকানায় লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সিমেন্ট বোঝাই ট্রাক খালে, নিহত ২

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে সিমেন্ট বোঝাই একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালে ...

খাদ্য পণ্যে ভেজাল : অভিযোগ জানাতে হটলাইন চালুর নির্দেশ

স্টাফ রির্পোটার : ভেজাল খাদ্য পণ্যের বিরুদ্ধে ভোক্তারা যেকোনো সময় অভিযোগ জানাতে পারে ...