Home | অর্থনীতি | ব্যাংক ও বীমা | ইসলামী ব্যাংকের মুদারাবা মোহর সঞ্চয় প্রকল্প- নারী অধিকারের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত

ইসলামী ব্যাংকের মুদারাবা মোহর সঞ্চয় প্রকল্প- নারী অধিকারের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত

ISLAMI BANK MUDARABAস্টাফ রিপোর্টার : মোহরানা স্ত্রীর মৌলিক অধিকার। মুসলিম জনগণের মাঝে ইসলামী শরী’আহ অনুযায়ী এ অধিকার আদায় সম্পর্কে সচেতনা তৈরি করতে ইসলামী ব্যাংক চালু করেছে মুদারাবা মোহর সঞ্চয় প্রকল্প। এ সঞ্চয় প্রকল্পের মাধ্যমে সমাজে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠিত হয় পাশাপাশি নারীকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে সাহায্য করে। সমাজে নারীরা নানা বৈষম্যের শিকার হয়। এমনকি তাদের বৈধ পাওনা মহোরানা থেকেও তারা বঞ্চিত হয়। অধিকার বঞ্চিত এ সকল নারীর পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এসেছে ইসলামী ব্যাংক।

নিছক ব্যাংকিং ব্যবসার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে সমাজের সকল মানুষের কল্যাণে কাজ করাই ইসলামী ব্যাংকের লক্ষ্য। তাইতো সমাজ ও মানুষের কল্যাণ হয় এমন প্রতিটি কাজে অংশগ্রহন করতে কার্পণ্য করেনা এ ব্যাংক। সকলের অংশ গ্রহনে দরদী  একটি সমাজ গঠনে কাজ করছে ইসলামী ব্যাংক। “আর তোমরা আনন্দের সাথে স্ত্রীদের মোহরানা আদায় করে দাও। তবে যদি তারা স্বেচ্ছায় কিছু অংশ মাফ করে দেয়, তাহলে তা সানন্দে ভোগ করতে পারো।”  আল-কুরআনের এ নির্দেশনার সফল পরিপালন সকলের নিকট সহজ করতেই ইসলামী ব্যাংকের এ উদ্যোগ।

সমাজের সর্বস্তরের মুসলিম জনসাধারণ বিশেষত পেশাজীবী, চাকুরিজীবী, ব্যবসায়ী, প্রবাসীগণ তাদের সামর্র্থ্য অনুযায়ী মাসিক কিস্তিতে টাকা জমা দিয়ে এই প্রকল্পের আওতায় একাউন্ট খুলতে পারবে। ৫ বছর ও ১০ বছর মেয়াদী এ হিসাবের পরিচালনাকারী হিসেবে ভূমিকা পালন করবে স্বামী বা বিবাহেচ্ছুক পুরুষ। কাবিননামায় উলে¬খিত মোট টাকার পরিমাণ, ইতোমধ্যে আদায়কৃত টাকা এবং আদায়যোগ্য টাকার পরিমাণ উলে¬খ করে আদায়যোগ্য টাকার উপর মাসিক কিস্তির হার নির্ধারণ করা হয়। বাংলাদেশের যে কোন বৈধ নাগরিক তার জাতীয় পরিচয়পত্র/পাসপোর্ট/নাগরিকত্ব সনদপত্রের ফটোকপি, নিজের ২ কপি ছবি, স্ত্রীর ২ কপি ছবি (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) ও নমিনির ১ কপি ছবি নিয়ে ইসলামী ব্যাংকের যে কোন শাখায় এ একাউন্ট খুলতে পারবেন। মাসিক কিস্তির টাকা মাসের যে কোন দিন অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন শাখা থেকে জমা দেয়া যাবে। ইন্টারনেটের মাধ্যমেও টাকা জমা দেয়া যাবে। চাইলে গ্রাহক কিস্তির টাকা অগ্রিম পরিশোধ করতে পারবে। এই একাউন্টের মূল টাকা ও প্রদত্ত মুনাফা সবই স্ত্রীর প্রাপ্য।

ইসলামী ব্যাংকের সেবার মাধ্যমে মুদারাবা মোহর হিসাবে সঞ্চিত অর্থ দিয়ে একজন স্বামী তার স্ত্রীর মোহরানার ঋণ থেকে নিজেকে মুক্ত করতে পারেন। নারীর জীবনে আর্থিক স্বচ্ছলতা আসে। তার সম্মান প্রতিষ্ঠিত হয়। সর্বোপরি সমাজে নারীর অধিকার আদায়ের মাধ্যমে তাদের আর্থ-সামাজিক মুক্তি ত্বরান্বিত হয়। নারী-পুরুষের সকলের অধিকার নিশ্চিত হওয়ার মাধ্যমে সমাজে সুখের অনাবিল আনন্দ বিরাজ করবে এটাই সবার প্রত্যাশা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সোনালী ব্যাংকের জিএম হিসেবে খোরশেদ আলমের পদোন্নতি

স্টাফ রিপোর্টার: জনাব খোরশেদ আলম পাটওয়ারী গত ২৯/১০/২০১৭ ইং তারিখে পদোন্নতি প্রাপ্ত ...

ঈদে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার :  পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির সময় ব্যাংকের অটোমেটেড টেলার মেশিন(এটিএম) ...