Home | আন্তর্জাতিক | ইসলামি শাসনব্যবস্থার শত্রুরা ইরানের ক্রমবর্ধমান শক্তি দেখে ভীত হয়ে পড়েছে
A handout picture released by the official website of the Centre for Preserving and Publishing the Works of Iran's supreme leader Ayatollah Ali Khamenei, shows him attending a meeting in Tehran on April 9, 2015. AFP PHOTO / HO / KHAMENEI.IR === RESTRICTED TO EDITORIAL USE - MANDATORY CREDIT - "AFP PHOTO / HO / KHAMENEI.IR" - NO MARKETING NO ADVERTISING CAMPAIGNS - DISTRIBUTED AS A SERVICE TO CLIENTS ===

ইসলামি শাসনব্যবস্থার শত্রুরা ইরানের ক্রমবর্ধমান শক্তি দেখে ভীত হয়ে পড়েছে

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক:  ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি বলেছেন, ইসলামি শাসনব্যবস্থার শত্রুরা তার দেশের ক্রমবর্ধমান শক্তি দেখে ভীত হয়ে পড়েছে। কিন্তু এই শক্তি থামিয়ে রাখার জন্য তাদের পক্ষে কিছু করা সম্ভব নয়।

রবিবার তেহরানে ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর সিনিয়র কমান্ডারের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন। শক্তি, নিরাপত্তা, সম্মান এবং প্রয়োজনীয় মুহূর্তে শক্তি ব্যবহারের সামর্থ্যকে ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান লক্ষ্য বলে উল্লেখ করেন খামেনি।

ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক খামেনি বলেন, এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য সশস্ত্র বাহিনীর সকল কার্যক্রম পরিচালিত হতে হবে।

তিনি বলেন, ‘ইরানের বিরুদ্ধে বর্তমান সময়ের অভূতপূর্ব সম্মিলিত শত্রুতার কারণ এই শাসনব্যবস্থার ক্রমবর্ধমান শক্তি। শত্রুরা এই শক্তিতে ভীত হয়ে পড়েছে এবং এ কারণে তারা শত্রুতা ও বিদ্বেষ বাড়িয়ে দিয়েছে।’

এসব শত্রুতা ও বিদ্বেষ ব্যর্থ হবে মন্তব্য করে খামেনি বলেন, ‘সব ধরনের ষড়যন্ত্র ও শত্রুতা সত্ত্বেও ইরানের শক্তিমত্তা প্রতিদিনই বাড়বে।’

বৈঠকের শুরুতে ইরানের সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরি বিগত ফার্সি বছরে তার বাহিনীর কর্মতৎপরতা ও অর্জন সম্পর্কে একটি সংক্ষিপ্ত প্রতিবেদন তুলে ধরেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে আরও ২১ অভিযোগ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে অর্থপাচার সংক্রান্ত আরও ২১টি অভিযোগ ...

ট্রাম্পের সঙ্গে শুয়ে মজা নেই : পর্ন তারকা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প সবচেয়ে বেশি যে ...