ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | আর্থিক শৃঙ্খলাবান্ধব বাজেট ঘোষণার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের

আর্থিক শৃঙ্খলাবান্ধব বাজেট ঘোষণার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের

স্টাফ রিপোর্টার, ২৩ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : আগামী জুনে বর্তমান সরকারের শেষ বাজেট ঘোষণা করতে যাচ্ছে অর্থমন্ত্রণালয়। অতিরিক্ত রাজনীতিকরণের মাধ্যমে আর্থিক শৃঙ্খলা যেন ভেঙে না পড়ে এমন বাজেট ঘোষণার পরামর্শ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান- বিআইডিএসের পরিচালক ড. জায়েদ বখত বলেন, ‘নির্বাচনের বছরে এসে সরকারগুলো রাজনৈতিক বিবেচনায় বাজেট করে, যা ভোটের রাজনীতির জন্য ভালো হলেও অর্থনীতির জন্য খারাপ। আমার পরামর্শ হলো, সরকারের শেষ বছরের আর্থিক শৃঙ্খলা যেন ভেঙে না পড়ে এমন বাজেট করতে হবে। এটা করতে ব্যর্থ হলে আমদানি-রপ্তানি ও মূল্যস্ফীতির ওপর চাপ বাড়বে। এ অবস্থা সৃষ্টি হলে তা সামাল দেয়া সত্যিই কঠিন হবে।
তিনি বলেন, সরকারের শেষ বছরে রাজনৈতিক বিবেচনায় প্রকল্প বরাদ্দ এবং ব্যয় করা হয়। এ সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসে সত্যিকার জনকল্যাণে প্রকল্প নিতে হবে। সরকারি বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। এটা না হলে বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট হবে না। পাশাপাশি বৈদেশিক সাহায্যপুষ্ট প্রকল্পগুলো যেন দক্ষতার সঙ্গে বাস্তবায়ন হয় সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দিতে হবে।
পলিসি ফর রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান মনসুর জানান, আগামী বাজেট প্রণয়ন কঠিন হবে। নানা চাপের মধ্যে থাকবে সরকার। একদিকে দক্ষতার সঙ্গে আন্দোলন সামলে অর্থনীতিকে সচল রাখতে হবে, অন্যদিকে সরকারের শেষ বছর বলে প্রকল্প নির্বাচনের ক্ষেত্রে অর্থমন্ত্রীর ওপর রাজনৈতিক চাপ থাকবে। এ সত্ত্বেও একটি বাস্তবসম্মত বাজেট চাই। সেটা কতদূর সম্ভব তা নির্ভর করছে অর্থমন্ত্রী কতটা চাপ সামলাতে পারবেন তার ওপর।
তিনি বলেন, ‘আসছে বাজেটেও ভর্তুকির চাপ বাড়বে। বিগত বছরগুলোর ভর্তুকির বকেয়া শোধ করতে হবে, রাজনৈতিক কারণে বিপদে পড়া অর্থনীতিকে চাঙ্গা রাখতে বিদ্যুৎ-জ্বালানির পাশে অনেক জায়গায় ভর্তুকির চাপ বাড়বে। অন্যদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোকে পুনরুজ্জীবিত করতে প্রচুর নগদ অর্থ সরবরাহ করতে হবে।
ইকোনমিক রিসার্চ গ্রুপের পরিচালক ড. সাজ্জাদ জহির জানান, আগামী অর্থবছরের বাজেট হচ্ছে নিয়মানুবর্তিতার বাজেট। তিনি বলেন, ‘আগে যেসব পরিকল্পনা দেয়া হয়েছিল তার অনেক কিছুই বাস্তবায়িত হয়নি। আবার ঠিক এ মুহূর্তে সুদীর্ঘ পরিকল্পনা নিয়ে বাজেট করার মতো রাজনৈতিক অবস্থায় সরকার নেই। ফলে আমি মনে করি, অপচয় কমিয়ে মানুষ, সমাজ ও রাজনীতির জন্য স্থিতিশীলতা আনতে পারে এমন একটি বাজেট করা উচিত।’
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, অর্থমন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ও পরিকল্পনা কমিশন এরই মধ্যে নতুন বাজেটের প্রস্তুতিমূলক কাজ শুরু করেছে। এদিকে সম্প্রতি সামষ্টিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও বাজেটে অর্থায়ন শীর্ষক এক বৈঠকে অর্থমন্ত্রী নতুন বাজেটের বিষয়ে আলোচনা করেছেন। সেখানে জিডিপি, মূল্যস্ফীতি, রাজস্ব খাত, বৈদেশিক খাত, এডিপিসহ বাজেটের সার্বিক বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, আগামী জুনের মাঝামাঝিতে পরবর্তী অর্থবছরের বাজেট জাতীয় সংসদে প্রস্তাব করবেন অর্থমন্ত্রী। এরপর জুনের শেষের দিকে তা সংসদে পাস হবে এবং ১ জুলাই থেকে নতুন বাজেট বাস্তবায়ন শুরু হবে।
x

Check Also

‘গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন’ নির্বাচনে মুজাক্কির – সেলিম প্যানেল বিজয়ী

জিয়াউল হক জুমন, স্পেন প্রতিনিধিঃ সিলেট বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত গ্রেটার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার ...