Home | ব্রেকিং নিউজ | সেদিন শুনতে পাই বঙ্গবন্ধু আর নেই

সেদিন শুনতে পাই বঙ্গবন্ধু আর নেই

গোপালগঞ্জ ও  টুঙ্গিপাড়া প্রতিনিধি  : সে দিন ছিল শুক্রবার। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সকালে ওয়ারলেসের মাধ্যমে প্রথমে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার খবর শোনেন তিনি। বারবার ওয়ারলেসে বলা হয়, এক স্বৈরশাসক সরকারের পতন হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার খবর টুঙ্গিপাড়ায় ছড়িয়ে পড়লে হতভম্ব হয়ে পড়ে টুঙ্গিপাড়াবাসী। কেউ যেন বিশ্বাসই করছিলেন না বঙ্গবন্ধু আর নেই। অশ্রু সজল নয়নে এ ভাবেই কথাগুলো বলছিলেন বঙ্গবন্ধুকে দাফনকারী কাজী ইদ্রিস আলী।

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধের পাশের একটি বাড়িতে থাকেন কাজী ইদ্রিস আলী। বয়স এখন প্রায় ৭৮ বছর। সংসারে স্ত্রী, তিন ছেলে ও দুই মেয়ে। বড় ছেলে ও দুই মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। সাত বছর আগে টুঙ্গিপাড়া শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব সরকারি হাসপাতালের চাকরির মেয়াদ শেষ হয়েছে। কোনো রকমে চালিয়ে নিচ্ছেন সংসার। যে ১৮ জন বঙ্গবন্ধুকে দাফন করছেন তার মধ্যে কাজী ইদ্রিস আলী একজন।

একদিন টুঙ্গিপাড়া ছিল অপরিচিত একটি গ্রাম। বনেদি পরিবারের বসবাস ছিল হাতে গোনা মাত্র দুই/একটি। তার মধ্যে একটি বনেদি পরিবারের নাম শেখ পরিবার। এই পরিবারের উত্তরসূরি শেখ হামিদ। শেখ হামিদের একমাত্র পুত্র শেখ লুৎফর রহমান। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ শেখ লুৎফর রহমান ও তার স্ত্রী শেখ সায়রা খাতুনের ঘরে জন্ম নেয় একটি শিশু। বাবা-মা নাম রাখেন ‘খোকা’। আদরের এই খোকাই হলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, পরবর্তীকালে জাতির পিতা এবং সমগ্র বাঙালির মুক্তিদাতা ও প্রিয় মানুষ।

সেই থেকে টুঙ্গিপাড়া একটি ঐতিহাসিক জনপদ। রাজনৈতিক গুরুত্বে ও লোকজ-সাংস্কৃতিক সমাবেশে টুঙ্গিপাড়া হচ্ছে ইতিহাসের এক গুরুত্বপূর্ণ স্থান। মধুমতি বিধৌত এ জনপদের রয়েছে সুপ্রাচীন ঐতিহ্য। গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া এখন ইতিহাসের এক অম্লান পাদপিঠ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মতো বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মস্থানও টুঙ্গিপাড়া। এখানে রয়েছে জাতির পিতার সমাধি সৌধ ও কমপ্লেক্স। এটি একটি দর্শনীয় ও পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে ইতোমধ্যে দেশবাসীর কাছে পরিগণিত হয়েছে।

১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে স্বাধীনতা যুদ্ধ করে বীর বাঙালি। নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শেষে পাক হানাদারের কাছ থেকে লাল-সবুজের পতাকা ছিনিয়ে আনে। যুদ্ধবিদ্ধস্ত বাংলাদেশে যখন পুনঃগঠনের কাজ শুরু করেন। ঠিক সে সময়ে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে জাতির পিতাকে স্বপরিবারে নির্মম ভাবে হত্যা করে বিপথগামী একদল সেনাসদস্য। এরপর তার লাশ নিয়ে আসা হয় গোপলগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায়। দাফন করা হয় মা-বাবার কবরের পাশে।

সেই সময়ের বর্ননা করে ইদ্রিস আলী বলেন, একটি হেলিকপ্টারে করে বঙ্গবন্ধুর লাশ নিয়ে আসে সেনাবাহিনী। এরপর থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা দাফনের জন্য আমাকেসহ ১৮ জনকে নিয়ে যান। পরে হেলিকপ্টার থেকে খোলা মাঠে (বর্তমানে সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স) বঙ্গবন্ধুর লাশবাহী কফিন নামানো হয়। এ সময় তারা তখনি লাশ দাফনের কথা বলেন। তখন কফিন খোলার জন্য মিস্ত্রি আব্দুল হামিদকে ডাকা হলেও তিনি বাড়িতে না থাকায় দায়িত্ব পড়ে তার ছেলে শেখ আইয়ুব আলীর ওপর। আইয়ুব আলী এসে কফিন খোলেন। কফিনে সাদা কাপড় দিয়ে ঢাকা ছিল বঙ্গবন্ধুর লাশ। কাপড় সরিয়ে দেখা যায় চশমাটি ছিল ডান পাশে ভাঙা অবস্থায়। গুলিতে বুক ঝাঁঝরা হয়েছিল। পাশের একটি পুকুর থেকে পানি এনে রক্ত ধোয়া হয়।

দ্রুত দাফন করার কথা বললেও গোসল না করিয়ে ও জানাজা না পড়িয়ে দাফন করতে অস্বীকার করেন মৌলভী সাহেব। পরে পাশের একটি দোকান থেকে ৫৭০ সাবান এনে গোসল করানো হয়। এরপর রিলিফের একটি সাদা কাপড় দিয়ে পরানো হয় কাফন। বঙ্গবন্ধুর জানাজাতে অংশ নেন মাত্র ৩০ জন। সে সব ঘটনা এখন মনে পড়লে কষ্ট পাই। বঙ্গবন্ধুকে যখন হত্যা করা হয় ও দাফন করা হয় তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছিলেন বিদেশে।

যখন বঙ্গবন্ধুর লাশ টুঙ্গিপাড়ায় আনা হয় তখন পরিস্থিতি কেমন ছিল, এমন প্রশ্নের জবাবে ইদ্রিস আলী বলেন, অনেক প্রভাবশালী লোকজন ভয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। পুরো এলাকায় আতঙ্ক ও ভীতি ছড়িয়ে পড়ে।
বঙ্গবন্ধুর বিচারের রায় সম্পূর্ণ কার্যকর না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, একজন দেশপ্রেমিক, দেশের স্থপতিকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু এখনো তার পলাতক খুনিদের দেশে এনে বিচারের রায় কার্যকর করা হয়নি। দ্রুত পলাতক খুনিদের দেশে এনে রায় কার্যকরের দাবি জানান তিনি।

[প্রিয় পাঠকপাঠিকা আপনিও বিডিটুডে ২৪ ডট কম এর অংশ হয়ে উঠুন।  নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করুন প্রকাশ করুন নিজের প্রতিভা আপনিও হতে পারেন লেখক অথবা মুক্ত সাংবাদিক সমকালীন ঘটনা, সমাজের নানান সমস্যাজীবনজাপনে সঙ্গতীঅসঙ্গতীসহ লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ঘরোয়া টিপসবিভিন্ন  বিষয়ে বস্তনিষ্ঠ   অপনার  যৌক্তিক মতামত  সর্বোচ্চ ১০০০ শব্দের মধ্যে গুছিয়ে লিখে আপনার নিজের ছবি এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ (যদি থাকে)  মেইল করুন  bdtoday24@gmail.com- ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ‘নিখোঁজের’ সংবাদটি গুজব

স্টাফ রির্পোটার : ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিখোঁজ’ শিরোনামের একটি খবরকে গুজব বলে নিশ্চিত করেছে ...

কাবুলে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৪৩

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে ধর্মীয় পণ্ডিতদের সভায় আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ...