Home | বিনোদন | ঢালিউড | আজ শাবনূরের জন্মদিন

আজ শাবনূরের জন্মদিন

বিনোদন ডেস্ক :  নব্বইয়ের দশক থেকে এ পর্যন্ত আসা অভিনেত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় তারকা হিসেবে এখনও বিবেচনা করা হয় শাবনূরকে। ক্যারিয়ারে বাংলা চলচ্চিত্রকে তিনি যেভাবে সমৃদ্ধ করেছেন, তা আজীবনই মনে রাখবে এ দেশের সিনেপ্রেমীরা। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় দক্ষতা দেখিয়ে শাবনূর যেভাবে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন, তাকে আদর্শ হিসেবে নিতে পারেন এই সময়ের যেকোনো নায়িকা।

বাংলা চলচ্চিত্রের বহু প্রতিভাধর সেই নায়িকার আজ জন্মদিন। অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও শুভকামনা শাবনূরের জন্য। ১৯৭৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর যশোরের শার্শায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। পিতার নাম শাহজাহান চৌধুরী। তিন ভাই-বোনের মধ্যে শাবনূর সবচেয়ে বড়।  বোন ঝুমুর এবং ভাই তমাল দুজনেই নিজ নিজ পরিবারসহ অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস করেন।

নূপুর থেকে যেভাবে তিনি শাবনূর হলেন

চলচ্চিত্র জগতের অনেক তারকাই আসল নামের পরিবর্তে ভিন্ন নামে বিনোদন জগতে পরিচিত হন। মান্না, জসিম, সোহেল রানা, রুবেল এবং এ প্রজন্মের শাকিব খান থেকে শুরু করে এ তালিকায় আছে আরও অনেক নাম। চিত্রনায়িকা শাবনূর সে দলেরই একজন। তার আসল নাম শুনলে বেশিরভাগ মানুষই তাকে চিনবেন না। অথচ শাবনূর নামে তিনি সারা দেশব্যাপী সুপরিচিত।

পারিবারিক ভাবে শাবনূরের নাম রাখা হয় কাজী শারমিন নাহিদ নুপুর। পরে স্বনামধন্য চলচ্চিত্র পরিচালক এবং তার মেনটর এহতেশাম কাজী শারমিন নাহিদ নুপুরকে বানিয়ে দেন শাবনূর। শাবনূর শব্দের অর্থ হচ্ছে রাতের আলো।

বাংলা চলচ্চিত্রে শাবনূরের অবদান

১৯৯৩ সালে ‘চাঁদনী রাতে’ছবির মাধ্যমে পরিচালক এহতেশামের হাত ধরে চলচ্চিত্রে পা রাখেন শাবনূর। প্রথম ছবি ব্যর্থ হলেও প্রয়াত সুপারস্টার নায়ক সালমান শাহের সঙ্গে জুটি বেঁধে উপহার দেন বেশ কয়েকটি সুপারহিট ও ব্যবসাসফল ছবি। সালমান-শাবনূর জুটিকে বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে অন্যতম সেরা জুটি হিসেবে এখনও বিবেচনা করা হয়।

সালমান শাহের মৃত্যুর পর নায়ক, রিয়াজ, শাকিল খান, ফেরদৌস ও শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন বহু ছবিতে। সেখানেও পেয়েছেন তুমুল জনপ্রিয়তা। অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ একবার ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার’,  রেকর্ড পরিমান দশবার ‘মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার’ এবং সাত বার ‘বাচসাস পুরস্কার’ সহ অনেক পুরস্কার রয়েছে শাবনূরের ঝুলিতে।

অভিনেত্রীর ব্যক্তিগত ও পারিবারিক জীবন

২০১১ সালের ৬ ডিসেম্বর ব্যবসায়ী অনিক মাহমুদের সঙ্গে শাবনূরের আংটি বদল হয়। পরে ২০১২ সালের ২৮ ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন এ জুটি। অনিয়মিত হয়ে পড়েন চলচ্চিত্রে। কেননা, বিয়ের পর ভাই-বোনদের মতো শাবনূরও স্বামী অনিকের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাস শুরু করেন এবং সেখানকার নাগরিকত্ব লাভ করেন।

২০১৩ সালের ২৯ ডিসেম্বর শাবনূর-অনিক জুটির প্রথম সন্তানের জন্ম হয়। ছেলের নাম রাখেন আইজান নিহান। বর্তমানে স্বামী-সন্তান নিয়ে বছরের বেশির ভাগ সময় অস্ট্রেলিয়াতেই কাটান এক সময়ের সুপারহিট এ নায়িকা। কাজ পড়লে মাঝে মাঝে ছুটে আসেন বাংলাদেশের মাটিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পাচ্ছেন হিরো আলম

স্টাফ রির্পোটার : “হিরো আলম” সোশ্যাল মিডিয়া থেকে আকস্মিক আলোচনায় চলে আসা ...

দুই হুমায়ূনই ফারুকের কারিগর

বিনোদন ডেস্ক : বাংলা নাট্য জগতের জনপ্রিয় একজন অভিনেতা ফারুক আহমেদ। প্রয়াত কথাসাহিত্যিক, ...