ব্রেকিং নিউজ
Home | বিনোদন | ঢালিউড | অনিমেষ আইচ এর এক ছবির বাজেট ৪ কোটি টাকা! প্রযোজকের টাকা অপচয়ের অভিযোগ

অনিমেষ আইচ এর এক ছবির বাজেট ৪ কোটি টাকা! প্রযোজকের টাকা অপচয়ের অভিযোগ

animesh aich animesh aich 1বিনোদন ডেস্ক : ছোট পর্দার আলোচিত পরিচালক অনিমেষ আইচ। বড় আশা নিয়ে ২০১১ সালের ১৭ ডিসেম্বর শুরু করেছিলেন তার পরিচালিত প্রথম ছবি ‘না-মানুষ’র কাজ। কিন্তু প্রায় দু ‘বছর পরও এখনো শেষ হয়নি এ ছবির কাজ। মিডিয়ার অনেকেই অনেক আশা নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন অনিমেষের প্রথম ছবিটি নিয়ে। ঘটনাটা কী? কেন অনিমেষ তার প্রথম ছবির শুটিং শেষ করতে পারলেন না— সমস্যাটা কোথায়? এ ধরনের নানা প্রশ্নের উত্তর খুজতে গিয়ে পাওয়া গেল অনিমেষ সম্পর্কে নানা অভিযোগ। ছবিটির প্রযোজক মনজুর এহসান চৌধুরী সম্প্রতি এ ছবি নিয়ে মুখ খুলেছেন মিডিয়ার কাছে। তিনি বলেছেন,’আমি মূলত ‘লাইন’ নামে একটা সিনেমা বানাতে অনিমেষ আইচের কাছে গিয়েছিলাম। দুই বাংলার মানুষের সম্পর্ক ও প্রেম নিয়ে আমিই নিজে গল্পটি লিখেছিলাম। তখন অনিমেষ রাজি হয়। পত্রপত্রিকাতেও এ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন প্রচারণার ব্যবস্থা করে। এর মধ্যে ভারতে গিয়েও অনিমেষ কিছু কাজ করে। আর এসব কাজেই আমার ৬০ লাখ টাকা সে খরচ করে ফেলে। আমি যখন তাকে ছবির বাজেট দিতে বলি, সে আমাকে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকার বাজেট দেয়। তখন আমি বলি এত টাকা দিয়ে আমি ছবি বানাবো না। এরপর আর তার সঙ্গে দীর্ঘদিন আমার কোনো যোগাযোগ ছিল না।

এরপর প্রায় মাস ছয়েক পর সে  আমার সাথে যোগাযোগ করে এবং আবারও ছবি নির্মানের প্রস্তাব দেয়। অনিমেষ আমাকে বলে, তার  কাছে একটা ভালো স্ক্রীপ্ট আছে, শহীদুল জহিরের গল্প নিয়ে সে স্ক্রীপ্টটা করেছে। বাজেটও বেশি লাগবে না। এক কোটি টাকা দিলেই ছবির কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে জানায়। আমি রাজি হই ছবিটি প্রডিউস করতে। ছবির কাজ শুরু হলো, সব হল, টাকা খরচ করতে করতে বাজেট গিয়ে দাড়ায় ১ কোটি ৮০ লাখ এ।  তখন আমি টাকা দেওয়া বন্ধ করে দিই । কারণ যে ছবি সে এক কোটি টাকা দিয়ে বানাবে বলে আমাকে রাজি করিয়েছে, সে ছবির ৭০ ভাগ কাজ না করতেই তার খরচ হয় ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা। আমি তখন হিসাব করে দেখলাম এ ছবি শেষ করতে হলে আমাকে আরো ১ কোটি ২০ লাখ টাকা দিতে হবে। এখন কথা হচ্ছে আমি ৩ কোটি টাকা দিয়ে ছবি বানিয়ে কয় টাকা লাভ করবো। লাভ তো হবেই না বরং পুরো টাকাই লস। নতুন করে ১ কোটি ২০ লাখ টাকা লস করার কী দরকার— এ ভেবে আমি আমার ছবির সমস্ত ফুটেজ ও কাঁচা ফিল্ম নিয়ে নিই। সব মিলে আমার ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা নষ্ট করেছে অনিমেষ। আমি আর লস বাড়াতে চাই না। এ ছবির আর কোনো ভবিষ্যত নেই। আমি জানি কোন দিন এ ছবি আলোর মুখ দেখবে কি না।’

তিনি আরো জানান, অনিমেষ আইচ বেহিসাবে টাকা খরচ করেছেন এ ছবিতে। যাকে ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার দরকার তাকে দিয়েছেন ৩ লাখ টাকা। এখনো ছবির এডিটিং, মিউজিক, কালার গ্রেডিং, এবং শুটিং সহ আরো অনেক কাজ বাকী আছে।  এ বিষয়ে অনিমেষ আইচ বললেন ,’আমি আসলে এ ছবি বিষয়ে কোনো কথা বলতে চাই না। নতুন করে কোনো ঝামেলা তৈরি করার ইচ্ছে নেই। একটি ভালো ছবির জন্য ভালো বাজেট দরকার হয়। আমি যা করেছি ছবিটির ভালোর জন্য করেছি। আর আমার নিজের হাতে কোন টাকা খরচ করিনি। সব টাকা প্রযোজকের নিয়োগপ্রাপ্ত হিসাব রক্ষক ও প্রযোজকের স্ত্রীর হাতেই খরচ হয়েছে। আমি শুধু আমার চাহিদা জানিয়ে দিয়েছি। যে টাকা খরচ হয়েছে সব টাকা ছবিতেই খরচ হয়েছে। কোন টাকা অপচয় করা হয়নি। আমি চাই ছবিটা মুক্তি পাক। ছবিটা নিয়ে আমার কষ্ট ওনার চাইতে বেশি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শাবানার ছবির নায়ক শাকিব খান

বিনোদন ডেস্ক : অভিনয় ছেড়ে বহু বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন বাংলা ...

তরুণ পরিচালক রফিক সিকদারের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ অভিনেত্রী সুচরিতার

বিনোদন ডেস্ক : তরুণ পরিচালক রফিক সিকদারের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ তুলেছেন বাংলা ...